Breaking News
Home / সান-ডে ক্যাফে / কবিতা / শ্বেতা চক্রবর্তীর কবিতা

শ্বেতা চক্রবর্তীর কবিতা

 শ্বেতা চক্রবর্তী

 

দেবী

তোমার সংসার বলেছে, তুমি সস্তার মানবী,
তোমার সন্তান বলেছে, তোমার চোখের জলে গ্লিসারিন ঝরছে,
তোমার মা বলেছে, তুমি গোলাপফুল,
কিন্তু গোলাপ বলেই কাঁটা উদ্যত রাখতে হবে,
তোমার বন্ধুরা বলেছে, একদিন তোমায় খরতোয়া নদীতে ফেলে দেখবে তুমি সাঁতার ভুলে গেছ কিনা,
ছাতিমবীথি ধরে হাঁটতে হাঁটতে তুমি একলা হও,
বিষাক্ত ছাতিম ঘরে এনে বুকের ওপর নিয়ে শুয়ে পড়ো,
তোমার গুরুদেব তোমার পিঠে হাত রাখলে তুমি আগুন হয়ে ওঠো,
তুমি মহান যন্ত্রণার পেছনে গুঁজে দাও দূণি নামের ডিঙি।

তোমার এতদিনে মরে যাবার কথা,
আত্মহত্যায় পাপ আছে, তোমার বিশ্বাস,
ঝড়জলের রাতের পরই আসে গভীর প্রণয়, তোমার বিশ্বাস।

তুমি মরুভূমির শেষ অচেনা উট,
মরুঝড়ে তোমার চোখ ঢেকে যায়,
তবু ছুটতে ভালো লাগে।

বেদুয়িনের ঘোড়া তোমার মতো কাজল হয় না,
তোমার মতো পরিখার ওপারে শ্বেতপাথরের প্রাসাদের ছাদে নিশীথে উড়ন্ত-চুল নারী হয় না।

তুমি দেবী নও,
কিন্তু ওরা তোমায় দেবী হতে বলে,
বাধ্য করে তোমায় তোমার থেকে ভিন্ন হতে।

তুমিও বাধ্য করো ওদের গল্প রচনা করতে,
ঈর্ষায়, ক্ষোভে প্রতিদিন মরে যেতে,
ওদের গল্পে তুমি প্রতিদিন বেঁচে উঠবে বলে,
নবীন জলজ মাছের মতো লাল, নীল, হলুদে।

অন্যের ঈর্ষায় বেঁচে থাকতে থাকতে মানবীও দেবী হয়ে ওঠে।
শারদ সম্ভারে প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে হেসে ওঠে দুর্গা,
এ দেশ নারীপুজোয় বিখ্যাত ও বিচলিত এবং জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

Spread the love

Check Also

রবিবারের কবিতা, বিশ্বজ্যোতি সুর

 বিশ্বজ্যোতি সুর   নতজানু ছোট ছোট লড়াই হেরে গেছি প্রচুর, বারংবার নতজানু হয়েছি উদ্গ্রীব অশ্বের …

দীর্ঘ কবিতা, কিশোর ঘোষ

 কিশোর ঘোষ   নীল পরির গল্প কিছু গুহ্যকথা, এলোমেলো… কতো দুপুরের বাথরুমে ফোটা ফোটা মাফিয়া-স্নানের …

অরুণাভ রাহারায়-এর কবিতা

 অরুণাভ রাহারায়   উড়ান সে জানে রাত্রির গুহা, স্রোতের তপস্যা জল ছাড়া কেউ বুঝি হাসি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *