Breaking News
Home / TRENDING / ‘জয়েন্ট এন্ট্রান্স’ পরীক্ষায় গুজরাটি ভাষাকে প্রাধান্যের অভিযোগে সম্মুখসমরে মমতা-বাবুল

‘জয়েন্ট এন্ট্রান্স’ পরীক্ষায় গুজরাটি ভাষাকে প্রাধান্যের অভিযোগে সম্মুখসমরে মমতা-বাবুল

নীল রায়।

জয়েন এন্ট্রান্স (Joint Entrance) পরীক্ষায় গুজরাটি ভাষাকে প্রাধান্য দেওয়া নিয়ে রাজনৈতিক যুদ্ধ শুরু হল তৃণমূল-বিজেপির মধ্যে। সম্প্রতি জানা যায় গুজরাটি ভাষায় দেওয়া যাবে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা! এমনটা জানাজানি হতেই টুইট করে কেন্দ্রীয় সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন তথা মুখ্যমন্ত্রীর সাংসদ ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। ভাইপোর দেখানো পথ ধরে সুর চড়িয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Mamata Banerjee)। বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মমতা বলেন, “আমি কোনও ভাষার বিরুদ্ধে নয় প্রত্যেক ভাষাকে সম্মান করি। কিন্তু কেন শুধুমাত্র গুজরাটি ভাষায় গান এন্ট্রান্স পরীক্ষা দেওয়া যাবে?” তিনি আরও অভিযোগ করেন, “গুজরাট (Gujarat) ও মহারাষ্ট্র (Maharashtra) তাদের ভাষা জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা চালু করার আবেদন জানাল। কেবলমাত্র গুজরাটি ভাষাকেই অনুমতি দেওয়া হল। কেন সব ভাষাতেই মর্যাদা দেওয়া হবে না?” মুখ্যমন্ত্রী এমন প্রশ্ন তুলতেই সরব বিজেপি শিবির।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এমন অভিযোগ করতেই এদিন ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি (National Testing Agency) একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করে। সেই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, যাবতীয় নিয়ম মেনে ২০১৩ সালের জয়েন্ট এন্ট্রান্স গুজরাটি ভাষায় চালু করার জন্য আবেদন জানিয়েছিল সেই রাজ্যের সরকার। ২০১৬ সালে একই আবেদন করে মহারাষ্ট্র সরকার। মহারাষ্ট্রের দেবেন্দ্র ফড়নবীশ সরকার মারাঠি ও উর্দু ভাষায় পরীক্ষা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল। যদিও মাত্র এক বছর সেই প্রক্রিয়া চালু হওয়ার পর তা মহারাষ্ট্র সরকারের অনুরোধেই বন্ধ করে দেয় ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি। এই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গুজরাট ছাড়া আইনমাফিক অন্য কোনও রাজ্য সরকার তাদের ভাষা চালু করতে আবেদন জানায়নি। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন দাবি করেছেন তাঁর সরকারের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterji) এই একই দাবিতে চিঠি পাঠিয়েছেন টেস্টিং এজেন্সির কাছে!

এই প্রেস-বিজ্ঞপ্তিকে হাতিয়ার করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা আক্রমণ করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি বিজ্ঞপ্তিটি দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় দেওয়া এক বার্তায় বাবুল লেখেন, “মাননীয়া দিদি, কেন্দ্রের কোনো মিটিংয়ে তো আপনি থাকেনও না, কোনো অফিসারকেও পাঠাননা তাহলে এই ব্যাপারগুলো আপনি জানবেন কি করে!!”

সেই প্রেম প্রেস বিজ্ঞপ্তির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে এই গায়ক রাজনীতিক লেখেন, ” বিজ্ঞপ্তিটা একটু কষ্ট করে দেখুন আপনি বাংলায় প্রশ্নপত্র বানানোর কোনো উৎসাহ প্রকাশই করেননি – গুজরাট করেছে তাই পেয়েছে! এবার দয়া করে টুইটগুলি মুছে ফেলে তাড়াতাড়ি বাংলায় জয়েন্ট এন্ট্রান্স-এর প্রশ্নপত্র বানানোর ‘রিকোয়েস্ট লেটার’-টা লিখে পাঠিয়ে দিন এটি যাতে সত্বর করানো যায় তা আমি নিজে দেখবো ! শুধু পলিটিক্স করে বাংলার মানুষের অপূরণীয় ক্ষতি করে চলেছেন আপনি ও আপনার দল।” সঙ্গে তিনটি হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করেন তিনি, ‘টিএমছি’, ‘ডিভাইডার দিদি’ ও ‘স্পিডব্রেকার দিদি’ বলে!

Spread the love

Check Also

পাকিস্তান-আফগানিস্তান-বাংলাদেশে অত্যাচারিত অমুসলিমদের জায়গা দিতেও NRC, জানালেন শাহ

ওয়েব ডেস্ক: নির্দিষ্ট ধর্মপ্রধান প্রতিবেশী কয়েকটি রাষ্ট্রে অত্যাচারিত অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য NRC বিশেষ প্রয়োজন …

দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে প্রিয় স্মরণ সোমেনের

নীল রায়। প্রয়াত কংগ্রেস নেতা প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সীকে স্মরণ করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র (Somen …

রাজ্যের দোষেই জয়েন্ট প্রবেশিকায় বাংলা নেই, প্রামাণ্য চিঠি সহ টুইট রাজ্যপালের

ওয়েব ডেস্ক: রাজ্যপালের টুইটে ফের সরগরম রাজ্য রাজনীতি। এদিন জগদীপ ধনখড় টুইট করে, রাজ্যের দোষেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *